আমেরিকা কাজের ভিসা ২০২২ পাওয়ার উপায় জেনে নিন

আমেরিকা কাজের ভিসা ২০২২ পাওয়ার উপায় জেনে নিন এখানে। আমাদের অনেকেরই স্বপ্ন থাকে আমেরিকা গিয়ে জব করার বা আমেরিকা গিয়ে বসবাস করার। আজকের এই আর্টিকেলের মাধ্যমে জানতে পারবেন আমেরিকা কাজের ভিসা ২০২২ সম্পর্কে। এই লেখাটি পড়লে আপনি জানতে পারবেন কিভাবে আমেরিকা কাজের ভিসা পাওয়া যায় এবং কিভাবে আমেরিকা কাজের ভিসার জন্য আবেদন করতে হয় সে সম্পর্কে।

আমেরিকা এমন একটি দেশ যে দেশে সবাই যেতে চায়। বাংলাদেশের মানুষতো আরো বেশী করে চায় আমেরিকায় যেতে। কেননা সেখানে কাজের মান অনেক ভালো হয়ে থাকে। কাজ করলে অনেক ভালো পরিমান বেতন পাওয়া যায়। তবে স্বপ্ন থাকলেও অনেকেই নানা কারনে আমেরিকা যেতে পারে না। আজকের এই পোস্ট থেকে আমেরিকা যাওয়ার উপায় ও আমেরিকা কাজের ভিসা পাওয়ার উপায় সম্পর্কে জানতে পারবেন। তাহলে চলুন শুরু করা যাক!

আমেরিকা ভিসা পাওয়ার কিছু সহজ উপায়

এখন আমরা আমেরিকা ভিসা পাওয়ার কিছু সহজ উপায় সম্পর্কে জানবো। আমেরিকা ভিসা পাওয়ার বেশ কযেকটি উপায় রয়েছে। নিচে সে উপায় গুলো সম্পর্কে আলোচনা করা হলো:

১. প্রতিষ্ঠান ভিত্তিক কোন কাজ পাওয়া

আমেরিকা ভিসা পাওয়ার একটি উপায় হচ্ছে প্রতিষ্ঠান ভিত্তিক কোন কাজ পাওয়া। আমেরিকার কোনো প্রতিষ্ঠান আপনাকে সেখানে কাজের সুযোগ দিয়ে যদি অফার লেটার পাঠান তাহলে আপনি ভিসা পেতে পারেন। এক্ষেত্রে ওই প্রতিষ্ঠানকে আগে দেশটির ‘ডিপার্টমেন্ট অব লেবার’ থেকে সার্টিফিকেট নিতে হবে। তারপর অভিবাসী শ্রমিক নিয়োগের অনুমতি চেয়ে আবেদন করতে হবে। এই ক্যাটাগরিতে আমেরিকা প্রতি বছর ১ লাখ ৪০ হাজার ভিসা দিয়ে থাকে।

 

২. আপনার পরিবার যদি আমেরিকায় থাকেে

এটা আমেরিকা যাওয়ার অন্যতম সহজ একটি উপায়। আমেরিকায় যদি আপনার পরিবার থাকে তাহলে আপনি আমেরিকা ভিসা পাবেন। তবে মনে রাখবেন সেখানে আইনগতভাবে বৈধ সঙ্গীর নাগরিকত্ব থাকতে হবে। আইনগতভাবে বৈধ সঙ্গীর নাগরিকত্ব না থাকলে কিন্তু আপনি ভিসা পাবেন না। আমেরিকার যেকোনো নাগরিক তার স্বামী বা স্ত্রী অথবা পরিবারের কোন সদস্যকে সেখানে নিতে পারবে। আমেরিকায় তাদের নেওয়া জন্য সরকারের কাছে আবেদন করতে পারবে। আবেদন সফল হলে যাচাই বাচাই এর পর আমেরিকা ভিসা দেওয়া হবে।

 

৩. পড়াশোনা করার জন্য

আপনি চাইলে পড়াশোনা করার জন্যও আমেরিকা ভিসা পেতে পারেন। এই ভিসা পড়াশুনা চলাকালীন সময় পর্যন্ত কার্যকর হবে। এই ভিসার মাধ্যমে আপনি সেখানে থাকার স্থায়ী অনুমতি পাবেন না। তবে পড়াশোনার সময় আপনি যদি কোন প্রতিষ্ঠানে চাকরি করার অফার পেয়ে থাকেন তাহলে আপনি দেশে এসে আবার আমেরিকায় যেতে পারবেন।

 

আমেরিকা কাজের ভিসা ২০২২ কিভাবে পাবেন?

এবার আমরা জানবো আমেরিকা কাজের ভিসা কিভাবে পাবেন সে সম্পর্কে। আরো কিছুদিন আগে লটারির মাধ্যমে অনেকেই আমেরিকায় যেতে পারতো কিন্তু ডোনাল্ড ট্রাম্প দেশটির প্রেসিডেন্ট হবার পর সেটিও বন্ধ হয়ে যায়। তবে এ পরিস্থিতির মধ্যেও আমেরিকায় কাজের ভিসা পাওয়ার কিছু উপায় রয়েছে। নিচে আলোচনা করা হলো:

যারা আমেরিকায় স্থায়ীভাবে কাজের ভিসা পেতে আগ্রহী তারা নিচের লেখাটি ভালো ভাবে পড়ুন। আমেরিকায় কাজের ভিসার জন্য আপনাকে প্রথমে আবেদন করতে পারবেন। কাজের ভিসা পাওয়ার জন্য ইবি সিরিজের ১ থেকে ৫ পর্যন্ত ক্যাটাগরিগুলোতে আবেদন করতে পারবেন।

ইবি-১

ইবি-১ এর মধ্যে কয়েকটি বিষয়কে গুরুত্ব দেওয়া হয়ে থাকে। যেমন: কোনো বিষয়ে আপনার অসাধারণ দক্ষতা আছে কিনা বা বিশেষ কোনো ক্ষেত্রে দক্ষতা আছে কিনা। এছাড়াও আপনার যদি গবেষণাক্ষেত্রেও ভালো দক্ষতা থাকে তাহলে গবেষণা প্রতিষ্ঠানেও আপনি কাজের ভিসা পেতে পারেন। তবে এসব ক্ষেত্রে আপনাকে নির্দিষ্ট প্রমাণপত্র দেখানোর প্রয়োজন হবে।

ইবি-২

কোনো ব্যক্তির যদি কোনো ব্যতিক্রমী দক্ষতা থাকে তাহলেও আবেদন করা যাবে। এছাড়াও উচ্চতর শিক্ষা থাকলে তাহলে তিনি স্থায়ী কাজের জন্য আমেরিকা ভিসার আবেদন করতে পারবে। তবে এক্ষেত্রে বলে রাখা ভালো আমেরিকার কোনো প্রতিষ্ঠান থেকে দক্ষতার ভিত্তিতে আপনার কাছে কাজের অফার লেটার থাকতে হবে।

ইবি-৩

ইবি-৩ এই ক্যাটাগরিতে দক্ষ লোকজন বা দক্ষ প্রফেশনাল ব্যক্তিরা ভিসা পাবেন। তবে আপনি যে বিষয়ে দক্ষ সে বিষয়ে আমেরিকার কোনো প্রতিষ্ঠান থেকে চাকরির অফার লেটার থাকতে হবে। একটি গুরুত্বপূর্ণ কথা হচ্ছে এই বিষয়ে আমেরিকায় কর্মী পাওয়া সহজ কিনা বিষয়টি যাচাই করে নেবেন। কারণ এ বিষয়ে সেখানে দক্ষ জনবল থাকলে আপনি ভিসা পাবেন না।

 

ইউএস কাজের ভিসা নিয়ে আরো তথ্য

ইবি-৪

আরো একটি উপায়ে আপনি আমেরিকা ভিসা পেতে পারেন। সেটা হচ্ছে বিশেষ অভিবাসীদেরও ভিসা দেয় আমেরিকা। আমেরিকার ‘ইমিগ্রেশন অ্যান্ড ন্যাশনালিটি অ্যাক্ট  উল্লেখিত বিষয়গুলোতেই অভিবাসীরা স্থায়ীভাবে কাজের ভিসা পেয়ে থাকে। এরমধ্যে যে গুলো রয়েছে তা হলো-

  • ন্যাটোর সাবেক কর্মী বা ন্যাটোর সাবেক কর্মীর স্বামী বা স্ত্রী
  • চিকিৎসক
  • স্বশস্ত্র বাহিনীর সদস্য
  • ইরাক ও আফগানিস্তানের ভাষা জানেন এবং ইংরেজি অনুবাদ করতে পারেন এমন ব্যক্তি

বিঃ দ্রঃ আবার এর জন্য কোনো চাকরির অফার লেটার দরকার হয় না।

ইবি-৫

এবার আসা যাক ইবি-৫ সম্পর্কে। এটা হচ্ছে আপনার যদি আমেরিকা গিয়ে উদ্যোক্তা হবার মতো টাকা থাকে তাহলে এই ভিসা পেতে পারেন। তবে একটি কথা মনে রাখবেন, এই ক্যাটাগরিতে আপনাকে ভিসা পেতে হলে সেখানে গিয়ে ব্যবসা শুরু করতে হবে। আর কমপক্ষে ১০ জন আমেরিকানকে আপনার চাকরি দেয়ার সামর্থ্য থাকতে হবে। সব থেকে বড় কথা হচ্ছে কমপক্ষে ৫ লাখ ডলার বা বাংলাদেশি টাকায় ৪ কোটি টাকার বেশি বিনিয়োগ করতে হবে আপনাকে।

 

Check also:

ফিফা বিশ্বকাপ ২০২২ সময়সূচি – লাইভ ম্যাচ গ্রুপ ছবি সহ

 

আশা করছি আপনি আমেরিকা কাজের ভিসা ২০২২ পাওয়ার উপায় জেনে নিন সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে পেরেছি। আপনার যদি আমেরিকা কাজের ভিসা ২০২২ পাওয়ার উপায় জেনে নিন সম্পর্কে কোন প্রশ্ন থাকে তাহলে কমেন্ট করে আমাদের জানাতে পারেন। ভালো থাকবেন সব সময়।

Add a Comment

Your email address will not be published.